1. multicare.net@gmail.com : news : VOICE CTG NEWS
বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
আজ থেকে গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু মোরেলগঞ্জে স্পন্দনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে দিনব্যাপী বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় কর্মসূচি পালন ঝিকরগাছায় মৎস্যজীবী লীগের গাছের চারা ও করোনা সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ ধামরাইতে পূর্বশত্রুতার কারনে গাছ কর্তন হরিপুরে ছেলের লাঠির আঘাতে বাবার মৃত্যু ভাষা শহীদ বিদ্যানিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে চাকরি দেওয়ার নামে ঘুষ নেওয়ার অভিযোশিক্ষক নাটোরে লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে টিকা গ্রহীতাদের উপচে পড়া ভিড় চিরিরবন্দর থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানে ১৪ কেজি ২০০ গ্রাম গাঁজাসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার র‌্যাব-১৩ রংপুর কর্তৃক হেরোইনসহ ২ জন নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার মোড়েলগঞ্জে বিএনপির উদ্যোগে করোনা সামগ্রী অর্থ সহায়তা প্রদান

দিনাজপুর চিরিরবন্দরে মা-ছেলেকে অপহরণ ১৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণের দায়ে সিআইডির সহকারি পুলিশ সুপারসহ আটক ৫

  • প্রকাশিত: বুধবার, ২৫ আগস্ট, ২০২১
  • ৫৫ বার পড়া হয়েছে

এনামুল মবিন(সবুজ)
স্টাফ রিপোর্টার.
দিনাজপুর জেলার চিরিরবন্দর উপজেলার নান্দেড়াই গ্রামে মা-ছেলেকে অপহরণ করে মুক্তিপণ আদায়ের সময় রংপুর বিভাগের সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপারসহ ৫ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
মঙ্গলবার(২৪ আগস্ট) বিকেলের দিকে কাহারোল উপজেলার দশমাইল এলাকা থেকে রাতে তাদের আটক করা হয়।
আটক কৃতরা হলেন,সিআইডির সহকারি পুলিশ সুপার মোঃ সারোয়ার কবির (সোহাগ), এএসআই হাসিনুর রহমান, কনষ্টেবল আহসান উল ফারুক, ফসিউল আলম(পলাশ)ও হাবিব মিয়া।
চস্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চিরিরবন্দর থানার নান্দেড়াই গ্রামের লুংফর রহমানের বিরুদ্ধে ওই ৩ পুলিশ কর্মকর্তা ৫০ লাখ টাকার প্রতারণার মামলার আবেদন করেন। এ রকম অভিযোগের ভিত্তিতে ২৩ আগস্ট রাত ৯.৩০ মিনিটে তোরা লুৎফরের বাড়ি যায়। তাকে না পেয়ে তারা তার স্ত্রী জহুরা ও ছেলে জাহাঙ্গীরকে সিআইডি অফিসের উক্ত সদস্যগণসহ অন্য ২ জন বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে কালো মাইক্রোবাসে করে দিনাজপুর দশমাইল এলাকায় গিয়ে তার পরিবারের কাছে ১৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে এবং টাকা না দিলে তাদের মেরে ফেলা হবে বলেও হুমকি দেয়। লুৎফর রহমান ৮ লক্ষ টাকা দিতে চেয়ে বিষয়টি চিরিরবন্দর থানায় অবহিত করে। চিরিরবন্দর থানার এসআই তাজুল হোসেন দ্রুত অভিযান চালিয়ে কাহারোল উপজেলার দশমাইল এলাকা থেকে তাদের আটক করে ও অপহৃতদের উদ্ধার করে দিনাজপুর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে নিয়ে যায়।
এ বিষয়ে রংপুর সিআইডির পুলিশ সুপার আতাউর রহমান বিভিন্ন গণমাধ্যমকে বলেন, অভিযুক্তরা কোন প্রকার অনুমতি না নিয়ে চিরিরবন্দরে গেছে। তাদের আটকের বিষয়টি শুনেছি। তারা কেনো সেখানে গেছে, কাকে অপহরণ করেছে, এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় খোঁজখবর নিয়ে তদন্দ স্বাপেক্ষে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
এ ঘটনায় চিরিরবন্দর থানায় পুলিশ সুপারের নির্দেশনা মোতাবেক মামলা দায়ের প্রস্তুতি চলছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো সংবাদ পড়ুন

সর্বশেষ খবর